ফ্রিলেন্সিং সম্পর্কে ধারনা, এর সুবিধা এবং অসুবিধা

ফ্রিলেন্সিংঃ

বর্তমান সময়ে আমাদের দেশে তরুণদের কাছে সবচেয়ে আলোচিত বিষয়ের একটি হচ্ছে ফ্রিল্যান্সিং। যদিও আমাদের দেশে এখনও এ বিষয়টি নতুন, কিন্তু এরই মধ্যে অনেকে ফ্রিল্যান্সিং এর মাধ্যমে নিজেদের ভাগ্যকে সম্পূর্ণরূপে পরিবর্তন করতে সক্ষম হয়েছেন। পড়ালেখা শেষে বা পড়ালেখার সাথে সাথে ফ্রিল্যান্সিং এ গড়ে নিতে পারেন আপনার ভবিষ্যৎ ক্যারিয়ার। ফ্রিল্যান্সিং হচ্ছে মাল্টি বিলিয়ন ডলারের একটা বিশাল বাজার। উন্নত দেশগুলো কাজের মূল্য কমানোর জন্য আউটসোর্সিং করে থাকে। আমাদের পার্শবর্তী দেশ ভারত এবং পাকিস্তান সেই সুযোগটিকে খুবই ভালভাবে কাজে লাগিয়েছে। আমরাও যদি ফ্রিল্যান্সিং এর বিশাল বাজারের সামান্য অংশ কাজে লাগাতে পারি তাহলে এটি হতে পারে আমাদের অর্থনীতি মজবুত করার শক্ত হাতিয়ার।

 

ফ্রিলেন্সিং এর সুবিধাঃ

  1. সময়ের স্বাধীনতা ।
  2. স্থানগত স্বাধীনতা।
  3. নিজের পছন্দ অনুযায়ী কাজ করার স্বাধীনতা।
  4. নিজের পছন্দ অনুযায়ী কাজের রেট বা মূল্য নির্ধারণের স্বাধীনতা ।
  5. কোন নির্দিষ্ট প্রতিষ্ঠানে কাজ না করে একই সাথে একাধিক প্রতিষ্ঠানে কাজ করার সুবিধা।
  6. এককভাবে কাজ করার পাশাপাশি দলগত ভাবে কাজ করার সুবিধা।

7 । প্রজেক্টভিত্তিক কাজের মাধ্যমে অল্প সময়ে বেশি প্রজেক্টের কাজ সফলভাবে সম্পন্ন করে আয় বৃদ্ধি করতে পারেন ।

8 । একজন ফ্রিল্যান্সার তার যোগ্যতা ও দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে একইসাথে একাধিক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে নিজেকে সফলভাবে জড়িত রাখতে সক্ষম হন ।

9 । নিজের কাজের পরিবেশ এবং সময়কে নিজের পছন্দমতো নির্ধারণ করে নেওয়ার সুযোগ পেয়ে থাকেন।

10 । এককভাবে ফ্রিল্যান্স করার পাশাপাশি যে কেউ দলীয়ভাবেও কাজ করতে পারেন, যার ফলশ্রুতিতে কাজের মান আরও উন্নত হয় এবং গতি বৃদ্ধি পায় ।

ফ্রিলেন্সিং এর অসুবিধাঃ

ফ্রিল্যান্সিং এ যেমন নানা ধরনের সুবিধা রয়েছে, তেমনি আবার ফ্রিল্যান্সিং এ নানা ধরনের অসুবিধা ও রয়েছে। তবে বিভিন্ন ধরনের অসুবিধার মধ্যে অন্যতম অসুবিধা হল “স্বাস্থ্যগত সমস্যা”,

১। ফ্রিল্যান্সারদের মুলত দিনের বেশির ভাগ সময়ই কম্পিউটারের সামনে বসে থাকতে হয়, যার ফলে ফিজিক্যাল অ্যাকটিভিটি খুবই কম হয়ে থাকে। সুতরাং এর ফলে আমাদের উচ্চ রক্তচাপ, ওজন বৃদ্ধি পাওয়া, স্ট্রেস ইনজুরিতে পরার সম্ভাবনা, মুটিয়ে যাওয়া সহ নানা ধরনের সমস্যা সৃষ্টি হতে পারে।

২। ফ্রিল্যান্সারদের দীর্ঘক্ষণ এক জায়গায় বসে থাকার ফলে কোমরে দীর্ঘ স্থায়ী বেদনার সৃষ্টি হতে পারে।

৩। দীর্ঘক্ষণ কম্পিউটারের স্ক্রিনের সামনে বসে থাকার ফলে চোখের সমস্যা সৃষ্টি হতে পারে।

৪। দিনের বেশির ভাগ সময় কম্পিউটারের সামনে বা একলা ঘরে থাকতে হয় বলে একাকীত্ববোধ সৃষ্টি হতে পারে, এবং এই একাকীত্ববোধ থেকে আবার বিষন্নতারও সৃষ্টি হতে পারে।

৫। বেশির ভাগ সময় বাসায় থাকার কারনে ফ্রিল্যান্সারদের রোদের সামনে খুব একটা যাওয়া হয় না, যার ফলে আমাদের শরীরে ভিটামিন ডি-র অভাব দেখা দিতে পারে।

৬। বেশির ভাগ সময় রাত জেগে কাজ করতে হয় বলে ঘুমের নানা সমস্যা দেখা দিতে পারে।

ফ্রিলেন্সিং করার মার্কেট প্লেস সমূহ

  1. www.freelancer.com
  2. www.upwork.com
  3. www.fiverr.com
  4. www.peopleperhour.com

  5.  www.guru.com
  6. www.99designs.com

  7. www.joomlancers.com

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *